শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমানোর উপায়

ওজন কমানোর উপায়

বিভিন্ন কারণেই বৃদ্ধি পেতে পাড়ে শরীরের ওজন। তবে এতে ভেঙ্গে পড়ার কিছু নেই। ওজন কমানোর উপায় জানা থাকলে এবং তা সঠিকভাবে প্রয়োগ করলেই খুব সহজেই হ্রাস পাবে এ অতিরিক্ত ওজন।

  1. পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করুন। এতে শরীর আর্দ্র থাকে এবং পেট ভরা থাকবে। ফলে অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ এর সম্ভাবনা কমে যাবে।
  2. চিনি ও শর্করা থেকে দূরে থাকতে হবে, কেননা এগুলো অজন বৃদ্ধি করে।
  3. প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার খান। এতে পেশি স্বাস্থ্যকর হবে। প্রোটিন খাবার বাদ দিলে শরীরে এর বাজে প্রভাব পড়বে। ডিম, দুধ, মুরগির মাংস, ডাল খাদ্যতালিকায় রাখুন। তবে লাল মাংস (গরু, খাসি, হাঁস ইত্যাদি) এড়িয়ে চলুন।
  4. সবজি খান বেশি বেশি। সবজি খেলে ওজন কমে। সবজির মধ্যে রয়েছে প্রচুর পুষ্টি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা শরীর ভালো রাখতে সাহায্য করে। বিশেষ করে পেঁপে, টমেটু, গাঁজর, করলা, শালগম, মূলা ইত্যাদি।
  5. শরীরের জন্য কতটুকু ক্যালরি দরকার, সে অনুযায়ী খাবার খান। প্রয়োজনে পুষ্টি বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।
  6. ফাস্টফুডকে না বলুন। এগুলোর মধ্যে উচ্চ পরিমাণ ক্যালরি থাকে, এতে ওজন বাড়ে
  7. ওজন কমানোর জন্য প্রচুর পরিমাণে হাঁটার কোনো বিকল্প নেই। এতে কেবল ওজনই কমাবে না বরং কমবে হৃদরোগের ঝুঁকিও। বিষণ্ণতা বা মন খারাপ ভাবও হ্রাস পাবে।
  8. যোগ ব্যায়াম করলে মন ভাল থাকে এবং যে কোন কিছুতে মনোনিবেশ করা সহজ হয়। এতে ওজন কমানোর প্রতি মনোযোগ দেয়া সহজ হবে।

ওজন কমানোর উপায়

ডঃ নাদিয়া, বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ

স্বাস্থ্য বিষয়ক ছয়টি টিপস

  • সর্বদা বাম কানে মোবাইল ফোন রিসিভ করুন।
  • ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ঔষধ খাবেন না।
  • বিকেল পাঁচটার পরে কোন ধরণের ভারী খাবার খাবেন না (বিশেষ করে দুপরের খাবার)।
  • পানি সকালে বেশি পান করুন, রাতে তুলনামূলক কম।
  • ঔষধ খাওয়ার সাথে সাথেই শুয়ে পড়বেন না।
  • ফোনের ব্যাটারি যখন এক দাগ তখন ফোন রিসিভ না করাই ভালো, কারন তখন ফোনের রেডিয়শন ১০০০ গুন বেশি শক্তিশালী হয়!!

মেয়েদের পর্ণ দেখার প্রবণতা বাড়ছে

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের লস এঞ্জেলস বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণা থেকে দেখা গেছে, আগের চেয়ে বর্তমানে মেয়েদের পর্ণ দেখার প্রবণতা বেড়েছে। ২০০৫ সালে ২৩.৪৫ শতাংশ মেয়ে পর্ণ দেখতো। ২০১৫ সালে এ সংখ্যা ৪৬.৩৪ শতাংশে উঠে এসেছে। গবেষণার প্রধান জন প্রফেসর ম্যাকিন্স সংবাদ সম্মেলনে ব্যখ্যা করেছেন এর কারণগুলো।

এর মাঝে প্রধান কারণটি হচ্ছে সঙ্গির কাছ থেকে সঠিক সময় না পাওয়া। বর্তমানে ছেলেরা অনেক বেশি ব্যস্ত হয়ে পড়ছে। বিশেষ করে ক্যারিয়ার কিংবা ব্যবসা অথবা চাকরি। টুইন টাওয়ারে হামলার পর থেকে বিশ্ব অর্থনীতিতে যে ব্যপক ধস নেমেছে, এটা তারই প্রভাব বলেই মনে করেন, প্রফেসর ম্যাকিন্স। এ ছাড়া আরও একটি কারণ, বর্তমানে ইন্টেরনেট এবং পিসি ও স্মার্ট ফোন সহজলভ্য হওয়ায় সহজেই পর্ণ দেখার সুযোগ রয়েছে। এ ছাড়াও রয়েছে ইন্টারনেটে বিনামূল্যে পর্ণ দেখার সুযোগ। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ব্যবহার বেড়ে যাওয়া আরও একটি বড় কারণ, সহজেই এখানে লিঙ্ক কিংবা ভিডিও শেয়ার করা যায়।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ এর চর্ম ও যৌন চিকিৎসক প্রফেসর হারুন জানিয়েছেন, অতিরিক্ত পর্ণ দেখার প্রবণতায় যৌন রোগ বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং স্বাভাবিক যৌন ক্ষমতা কমে যায়। মনোবিদ প্রফেসর কামাল জানিয়েছেন, স্বাভাবিক যৌন ক্ষমতা কমে গেলে তা বিয়ের পরে প্রভাব পড়ে। এ ছাড়াও অনেক মানুষ পর্ণ দেখার কারণে কিছু ভ্রান্ত ধারণা নিয়ে থাকে। যেমন সঙ্গমের সময়ে অতিরিক্ত সময়, পর্ণস্টারদের সার্জারি করা মোহনীয় শরীর। আর এ কারণে কিছু অসাধু হার্বাল ও হোমিও চিকিৎসক স্বাভাবিক বিষয়কে অস্বাভাবিক বিষয় হিসাবে তুলে ধরে। আর এতে প্রভাব পড়ে অনেকের স্বাভাবিক মস্তিস্কে। ফলে মনোরোগ বৃদ্ধি পায় এবং মানসিকভাবে অনেকেই দুর্বল হয়ে পড়ে।

Tea

পেটের মেদ কমানোর উপায়সমূহ

অনিয়ন্ত্রিত খাদ্যা অভ্যাস ও শারীরিক পরিশ্রম না করার কারনে পেটে অতিরিক্ত মেদ বা চর্বি জমে যায়। এর জন্য হতে পারে উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিকস সহ নানা ধরণের রোগ। তাছাড়া পেটে অতিরিক্ত মেদ বা চর্বি নানা ধরণের সমস্যা তৈরি করে। এমনকি অনেক চাকরির ক্ষেত্রে তা বাধা হতে পারে।

Tea
চা

লেবুর শরবৎ
ঘুম থেকে ওঠার পরে লেবুর রস ও লবণ দিয়ে তৈরি করা এক গ্লাস শরবৎ পান করুন। তবে পানি হতে হবে হালকা গরম। খুব সহজেই কমে যাবে পেটের মেদ। এছাড়া এটি বিপাক ক্রিয়ার সমস্যা থাকলে তাও দূর করে ফেলে।

সাদা চাল
সাদা চালে প্রচুর চর্বি থাকে। আর এ কারণে সাদা চাল পরিত্যাগ করতে হবে। বাদামী চাল ও বাদামী রুটিতে তুলনামূলক কম চর্বি থাকে। তাই এগুলো খেতে হবে।

রসূন
প্রতিদিন সকালে দু-তিনটি কাঁচা রসুনের কোয়া খান। এর পরে এক গ্লাস লেবুর রস পান করুন। এতে আপনার পেটের চর্বি দীগুণ হারে কমা এবং আপনার শরীরের রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক করবে।

মশলা
এমন কিছু মশলা আছে, যেগুলো ওজন কমাতে সহায়তা করে। যেমন গোলমরিচ, দারুচিনি, আদা, রসূন ইত্যাদি। তারকারীতে এগুলোর ব্যবহার বাড়ানো যেতে পারে। তাছাড়া আদা চা বেশ উপকারী। এক কাপ লাল চায়ে এক চামচ আদা দেয়া যেতে পারে। আদা চা সর্দি-কাশিও দূর করে।

পানি
প্রচুর পানি পান করতে হবে। একজন পুর্ণ বয়স্ক মানুষের দিনে কমপক্ষে আড়াই থেকে তিন লিটার পানি পান করা উচিৎ। বিশেষ করে খাবার গ্রহণের পুর্বে এক থেকে দু গ্লাস পানি পান করা উচিৎ, এতে খাবার গ্রহণের পূর্বেই পেট অনেকটাই ভরে যাবে এবং অতিরিক্ত খাবার গ্রহণের প্রবণতা কমে যাবে।

লাল মাংস
লাল মাংস যেমন গরু, খাসী এগুলো জথা সম্ভব ত্যাগ করতে হবে। এগুলোর পরিবর্তে মুরগী, হাস ও মাছ খেতে হবে। লাল মাংসে প্রচুর চর্বি থাকে। সামুদ্রিক মাছ অতিরিক্ত মেদ দূর করতে সহায়তা করে।

শারীরিক ব্যায়াম
প্রতিদিন ন্যূনতম একঘন্টা ব্যায়াম করা উচিৎ এবং এমনভাবে করতে হবে, যেন পুর শরীর থেকে অজস্র ঘাম বের হয়। ব্যায়ামের মধ্যে দৌড়ান, সাতার কাটা, ওঠা-বসা করা ইত্যাদি। কাছা কাছি দূরত্বের জন্য বাস বা রিকসা পরিহার করে বাই সাইকেল ব্যবহার করা যেতে পারে এবং প্রচুর হাটার অভ্যাস করতে হবে। হাটার সময়ে জোড়ে হাটার অভ্যাস করতে হবে।

ঘুম
প্রতিদিন সময়মত ৬ ঘন্টা ভালো করে ঘুমালে শরীরে মেদ কম জমে এবং জমে থাকা মেদ ঝরতে সাহায্য করে। সঠিক সময়ে ঘুমালে আর অনেক শারীরিক সমস্যা দূর করে। বিশেষ করে উচ্চ রক্তচাপ, মানসিক অস্থিরতা ইত্যাদি।

Bangladeshi Wedding Photographer

চুল পড়া রোধ করতে যা করনীয়

গড়ে প্রতিদিন ১০০ থেকে ১৫০ টি চুল পড়া স্বাভাবিক। তবে এর বেশি পড়লে তার জন্য যত্ন নেয়া উচিৎ। প্রকৃতিগতভাবে চুল পড়াকে প্রতিরোধ করা সব সময় সম্ভব নয়। তবে চুলের নিয়মিত যত্ন নিলে চুল পড়ার হার অনেকাংশেই কমিয়ে আনা সম্ভব।

ত্বক বিশেষজ্ঞ ডঃ জাকির হূসাইন গালিব এ ব্যাপারে বেশ কিছু পরামর্শ দিয়েছেন।

Hair Fall
মডেলঃ নুসরাত জাহান

ভেষজ উপাদান
অ্যালোভেরার নির্যাস মাথার ত্বকে প্রয়োগ করলে চুলের গোড়া মজবুত হয় যা চুল পড়া প্রতিরোধ করে। মেহেদি সবচেয়ে বহুল ব্যবহৃত একটা ভেষজ উপাদান। বিজ্ঞ্যানীদের মতে, মেহেদী সবচেয়ে বেশি কার্যকর।

পেঁয়াজ রস
পেঁয়াজ বেটে রস ছেকে মাথায় রাখতে হবে প্রায় এক ঘন্টা। এরপর ভাল কোন হারবাল শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। পেঁয়াজ রসের সাথে সামান্য গোলাপ জল মেশালে ঝাঁজাল ভাব কমে যায়। পেঁয়াজ রস চুলে জমে থাকা জীবাণুকে ধ্বংস করে ফেলে। এছাড়া মাথায় রক্ত প্রবাহে সহায়তা করে।

প্রতি সপ্তাহে একবার থেকে দুবার করা যেতে পারে।

ফেনাস্টেরাইড আর মিনোক্সিডিল
ফেনাস্টেরাইড আর মিনোক্সিডিল নামের দুটো ওষুধ বাজারে পাওয়া যায়। তবে এ দুটো ঔষধে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে।

প্রোটিন
আমাদের চুল কেরাটিন দিয়ে তৈরি যা অ্যামিনো এসিড দিয়ে তৈরি এক ধরণের প্রোটিন। পর্যাপ্ত পরিমাণে প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করুন যাতে চুলের গোঁড়ায় পর্যাপ্ত প্রোটিন পৌছায়।

ভিটামিন সি
পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন সি রয়েছে এমন ফল-মূল যেমন পেয়ারা, লেবু, কমলা, আনারস, কামরাঙা, কাঁচা মরিচে ইত্যাদি।

ছবিঃ যুবাইর বিন ইকবাল