লাস ভেগাসে কনসার্টে খ্রিস্টান সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ৬০

যুক্তরাষ্ট্রের লাস ভেগাসে একটি কনসার্টে খ্রিস্টান সন্ত্রাসী হামলায় নিহত হয়েছে ৬০ জন ব্যক্তি। সন্ত্রাসী স্টিফেন প্যাডক এ হামলা চালিয়েছেন একটি হোটেলের কক্ষ থেকে এলোপাতারি গুলি এর মাধ্যমে। পুলিশ তাকে গ্রেফতারের আগেই তিনি আত্মহত্যা করেন। সন্ত্রাসী স্টিফেন প্যাডক এর বয়স প্রায় ৬৪। কয়েকজন ব্যক্তি জানইয়েছেন, কনসার্টটি প্রায় শেষের দিকে ছিল। সংগীতশিল্পী জ্যাসন আলদিয়ান যখন গান পরিবেশন করছিলেন তখনই আতর্কিত গুলি শুরু হয়। এরপরে লোকজন ছুটাছুটি শুরু করেন। এ ঘটনার পর থেকে সেখানে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। সন্ত্রাসী মান্দালয় বে হোটেলের ৩৩ তলা থেকে গুলি চালিয়েছে।

গত এক বছরে আমেরিকায় এ ধরণের এটি ৩য় হামলা। ৩য় এ হামলার পরে যুক্তরাষ্ট্র ত্যাগ করেছে অনেক বিদেশী নাগরিক। বার, কনসার্ট এসকল স্থানে এখন লোকজন যেতে সাহস পাচ্ছে না। এ হামলার পরে যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় ১৫ টি কনসার্ট বাতিল হয়েছে। অনেকেই বাতিল করেছে যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণ। যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন বিমান বন্দর অনেকটাই ফাকা ছিল গতকাল।

আলোকচিত্রি ডঃ হাসান জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্র এখন একটি ঝুকিপুর্ণ দেশ। সরকারের উচিৎ, অবিলম্বে যুক্তরাষ্ট্র থেকে সকল বাংলাদেশীদের ফিরিয়ে আনা।

Rainy day

Awesome Street Photography by Jubair You Should See

candid street photos
Bicycle
best street photographs
Crying Girl
famous street photography images
A boy is running in the wet field during flood in Dinajpur.
best street photographers instagram
Carpenter, Dinajpur
Street Photography Magazine
Fire Fighter
stock photo images
Ramna Park
free stock images
Rayerbazar
Street Photography Magazine
Firefighter
Candid Color Photography
Fruit Collector
street photographers
The Prayers

বিশ্বমানের ডিজে হবার পথে মিথিলা মিথি

ডিজে মিথিলা মিথি, আনিন্দ্য সুন্দরী একজন রমণী। তবে শুধু রূপ নয়, নিজেকে চিনিয়েছেন তিনি তার কাজের মাধ্যমে। অসাধারণ একজন ডিজে তিনি। মাতিয়ে তোলেন একটা পার্টি, সৃষ্টি করেন আনন্দ মুখর একটি পরিবেশ। তবে কেবল দেশের আঙ্গিনা নয়, হতে চান একজন বিশ্বমানের ডিজে। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে তিনি ছুটে যেতে চান আর উজ্জ্বল করতে চান দেশের নাম। আর এ জন্য তিনি পরিশ্রম করে যাচ্ছেন দিন-রাত্রি। প্রচন্ড ব্যস্ত তিনি কাজ আর অনুশীলন নিয়ে। ব্যস্ততার মাঝেও কিছুটা সময় তিনি দিয়েছেন প্রেস বাংলাদেশকে। সঙ্গে ছিলেন প্রেস বাংলাদেশ প্রতিবেদক যুবাইর বিন ইকবাল। পড়ন্ত বিকেলে কফি টেবিলে দুজন মেতে উঠেছিলেন এক আনন্দঘন আড্ডায়। আর এখানেই তিনি জানালেন জানা-অজানা অনেক কিছুই। নির্বাচিত কিছু অংশ পাঠকদের জন্য

dj
ডিজে মিথিলা

প্রেস বাংলাদেশঃ পথ চলার শুরুটা কিভাবে? কেন মনে হল, আপনি একজন ডি জে হবেন এবং ডি জে হবার পরে কেন মানুষ আপনাকে গ্রহণ করবে?
মিথিলাঃ যখন ইউটিউবে অন্যান্য দেশের ডি জেদের ভিডিও দেখতাম, তখন খুব ইচ্ছে হত আমিও একদিন ওদের মত ডি জে হব। একটা বিশ্বাস ছিল, যদি ভাল করতে পারি, তাহলে দর্শক অবশ্যই আমাকে গ্রহণ করবে। এরপর থেকেই ধীরে ধীরে শুরু হওয়া। এখন অনেকেই হিংসে করে আমায়। কিন্তু আমি আমার চলার পথে অটুট থাকব।

প্রেস বাংলাদেশঃ ক্যারিয়ারের শুরুতে কাদের সমর্থন পেয়েছিলেন?
মিথিলাঃ ক্যারিয়ারের শুরুতে ডি জে তৌফিক, ডি জে রনো এবং ডি জে রাহাত আমাকে সবদিক থেকে সহযোগিতা করেছিল। তাদের কারণেই আজ আমি এখানে। তাদের কাছে আমি চির কৃতজ্ঞ।

প্রেস বাংলাদেশঃ ডি জে নিয়ে আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি কি?
মিথিলাঃ আন্তর্জাতিক ডি জে হতে চাই।

প্রেস বাংলাদেশঃ এ পেশার চ্যলাঞ্জিং দিকগুলো কি?
মিথিলাঃ শো শেষ করে ফিরে আসাটাই অনেক চ্যালেঞ্জ মনে হয় আমার কাছে। কেন না অধিকাংশ শো শেষ হয় প্রায় মধ্য রাতে।

প্রেস বাংলাদেশঃ নতুন কেও এ পেশায় আসতে চাইলে কিভাবে আসা উচিৎ?
মিথিলাঃ ভাল কোন ডি জে এর কাছ থেকে আগে কাজ শেখা। এর পর শো করা।

প্রেস বাংলাদেশঃ কাকে আদর্শ মনে করেন?
মিথিলাঃ ডিজে জুইসি এবং ডিজে রাহাত

প্রেস বাংলাদেশঃ প্রথম প্রেমের গল্প?
মিথিলাঃ ভুলে গেছি!!! হা হা হা

প্রেস বাংলাদেশঃ কোন তারকার সাথে যেতে চান ডেটিঙে?
মিথিলাঃ সালমান খান। ইচ্ছে ছিল শহীদ কাপুর, কিন্তু এখন এক বাচ্চার বাবা!!!

প্রেস বাংলাদেশঃ বিয়ের পরে পূরোনো প্রেমিকের সাথে হুট করে দেখা হলে, কি বলবেন?
মিথিলাঃ দেখেও না দেখার ভান করব।

প্রেস বাংলাদেশঃ অবসরে কি করেন সাধারণত?
মিথিলাঃ গান শুনি, মাঝে মাঝে বই পড়ি।

প্রেস বাংলাদেশঃ কোথায় ঘুরতে পছন্দ করেন এবং সাথে কাকে নিতে পছন্দ করেন?
মিথিলাঃ প্রথম পছন্দ কক্সবাজার এরপরে সিলেট।

প্রেস বাংলাদেশঃ লটারীতে এক কোটি টাকা পেলে কি করবেন?
মিথিলাঃ বিশ্ব ভ্রমণ

প্রেস বাংলাদেশঃ তেলাপকা নাকি টিকটিকি, কোনটিকে বেশি ভয় পান? নাকি অন্য কিছু?
মিথিলাঃ দুটোকেই বেশ ভয় পাই, তবে সবচেয়ে বেশি ভয় পাই মানুষ। কেননা মানুষ বারবার রঙ বদলায়, এক রঙের আড়ালে থাকে আর এক রঙ।

ফটোশুট দিয়ে আলোচনায় পিয়া

জনপ্রিয় হিপ হপ ড্যান্সার পিয়া এবার আসছেন মডেলিং জগতে। আর তার এক্সক্লুসিভ ফটোশুট করলেন খ্যাতনামা ফটোগ্রাফার যুবাইর বিন ইকবাল। নন্দিত এ ফটোগ্রাফার পিয়া সম্পর্কে বলেছেন, পিয়া’র স্টাইল, লুক অসাধারণ। বিশেষ করে তাকানোর ভঙ্গি তাকে এনে দেবে মডেল হিসাবে খ্যাতি। জনপ্রিয় নির্মাতা পান্থ রহমান বলেছেন, তিনি পিয়ার শুট দেখার পরে তাকে তার পরের বিজ্ঞাপনের জন্য চুড়ান্ত করেছেন। ফটোশুটের পাশাপাশি মজার এক আড্ডায় মেতেছিলেন ফটোগ্রাফার যুবাইর এবং পিয়া। পিয়া শেয়ার করেছেন জানা-অজানা অনেক কিছুই। তাদের এ আড্ডার কিছু অংশ দর্শকদের জন্য –

Pia
পিয়া
ছবিঃ যুবাইর বিন ইকবাল

প্রশ্নঃ কবে সূচনা করেছেন? ড্যান্স
পিয়াঃ ২০১১ সালের দিকে প্রথম শুরু করি এবং আমার পছন্দ হিপ হপ। শুরুটা হয় নিজে নিজে টিভি দেখে দেখ। আর এখন কাজ করছি ঈগলস ড্যান্স কোম্পানি এর সাথে।

প্রশ্নঃ ড্যান্স শুরু করার পেছনের কারণ?
পিয়াঃ বাবা – মা’র অমতে শুরু করেছিলাম। ছিলাম অবাধ্য মেয়ে আর গুল্লি মেরেছিলাম পড়াশোনার।

প্রশ্নঃ আপনার বর্তমান কর্মব্যস্ততা?
পিয়াঃ ড্যানশ, রিহার্সেল, শো। আর ইদানিং মডেলিং শুরু করতে যাচ্ছি।

প্রশ্নঃ ভবিষ্যৎ নিয়ে কি ভাবছেন?
পিয়াঃ চলচ্চিত্রে কাজ করা

প্রশ্নঃ কি ধরনের প্রতিবন্ধকতার সম্মুখিন হয়েছেন?
পিয়াঃ আমার মত ডেয়ারিং মেয়ের আবার প্রতিবন্ধকতা!!!

প্রশ্নঃ নিজেকে কোথায় দেখতে চান?
পিয়াঃ বড় পর্দার জন্য তৈরি করছি নিজেকে।

প্রশ্নঃ দর্শক ফিডব্যাক কেমন?
পিয়াঃ স্টেজ ফাটায়া দেইতো!!!

প্রশ্নঃ অবসরে কি করেন সাধারণত?
পিয়াঃ বান্ধবীদের সাথে চ্যাটিং!!!

প্রশ্নঃ কোথায় ঘুরতে পছন্দ করেন এবং সাথে কাকে নিতে পছন্দ করেন?
পিয়াঃ নদীর পারে, ছোট বোন

প্রশ্নঃ অপছন্দের বিষয় কি?
পিয়াঃ কথা শুরু করতে না করতেই অনেক ছেলের I love you বলাটা খুব অপছন্দের!!!

প্রশ্নঃ কোন তারকার সাথে ডেটিঙে যেতে চান এবং কেন?
পিয়াঃ হিরো আলম কেননা হেব্ব লাগে

প্রশ্নঃ কাকে আদর্শ মনে করেন?
পিয়াঃ ক্যাটরিনা কাইফ

প্রশ্নঃ নিজের দুর্বলতা এবং কেন তাকে দুর্বলতা মনে করেন?
পিয়াঃ মানুষকে খুব দ্রুত আপন করে নেয়া

প্রশ্নঃ পছন্দের বিষয় কি এবং কেন?
পিয়াঃ শপিং। কেন, এটার উত্তর সকলেরি জানা। হা হা হা

প্রশ্নঃ কি দেখে সবচেয়ে বেশি ভয় পান এবং কেন ভয় পান?
পিয়াঃ যদি মা’র মৃত্যু হয়!!!

পশ্নঃ এমন একটি কথা, যা কেও জানে না এখন পর্যন্ত।
পিয়াঃ খেলতে গিয়ে একটা ছেলেকে কিস করেছিলাম

প্রশ্নঃ কোন লুকানো কষ্ট?
পিয়াঃ হিরো আলমকে এখনও পেলাম না

পশ্নঃ জীবনের সবচেয়ে আনন্দ ও কষ্টের মুহুর্ত কি কি ছিল?
পিয়াঃ হঠাত একিদন বাবা এসেছিল সেদিন। যখন বাবা অন্যত্র চলে গিয়েছিল।

প্রশ্নঃ প্রথম প্রেম কার সাথে?
পিয়াঃ তেমন করে কাওকে ভালবাসা হয় নি।

প্রশ্নঃ প্রথম ক্রাশ কে ছিল?
পিয়াঃ অঙ্কুশ

প্রশ্নঃ কি খেতে পছন্দ করেন?
পিয়াঃ অরেঞ্জ জুস

প্রশ্নঃ নিজের ভেতরে কি মুদ্রাদোষ খুজে পান?
পিয়াঃ ঘুমানোর সময়ে আঙ্গুল চুষতে থাকি

প্রশ্নঃ লটারীতে এক কোটি টাকা পেলে কি করবেন?
পিয়াঃ হিরো আলমকে দিয়ে দেব/ তারপরও অরে পাই

প্রশ্নঃ বিয়ের পরে পুরনো প্রেমিকের সাথে দেখা হলে কি করবেন?
পিয়াঃ কানশা বরাবর চড় মাড়ব

প্রশ্নঃ তেলাপকা নাকি টিকটিকি, কোনটিকে বেশি ভয় পান? নাকি অন্য কিছু
পিয়াঃ ইফফাত ই ফারিয়াঃ তেলাপোকা, ওকে কে বলেছে পাখির মত উড়তে

ফটোশুট

Jubair Bin Iqbal

Photographer
Jubair Bin Iqbal

Date of Birth: December 10, 1985
Hometown: Sirajganj
Religion: Islam

Education
K. B. High School
Dinajpur Government College
United International University

Occupation
Photographer, JBI Gallery
Computer Programmer

Awards

  1. 1st prize, UIU Open Day Programming Contest, 2008
  2. 1st prize, Wikipedia Monuments Photo Contest, 2016
  3. 2nd Prize, Bangla Wikipedia Photo Contest, 2015
  4. Best Nature Photo, www.creationearth.com
  5. Finalist, BRAC Bank SME Photo Contest, 2013
  6. Best Photo, 2013, giftedphotocontest.com
  7. Runners Up, Duggal Cinematic Photo Contest, USA
  8. Sony World Photography Award, 2015
  9. Winner, Prize Photography Contest, 2012
  10. 1st Position, UODA Week Photography Contest
  11. Best Photographer, International Tourism & Hospitality Management

Membership
UNYSAB
UIU Photography Club
Activista, Actionaid

Family
Father: Professor T. M. T. Iqbal

Mother: Dil Afruza

Sisters:

  • Jakia Bintay Iqbal
  • Sadia Bintay Iqbal
  • Rubaiya Bintay Iqbal

Wife: Sumaiya Hossain Tamanna

News Link
www.thedailystar.net
www.amazingdinajpur.com

দেশের সবচেয়ে বড় ঈদ এর জামাত দিনাজপুর

দিনাজপুর এর গোর এ শহিদ এ ময়দানে দেশের সবচেয়ে বড় জামাত হয়েছে। প্রায় তিন লক্ষ্য মানুষ এক সাথে নামাজ আদায় করেছে। দিনাজপুর এর সম্মানিত খতিব জনাব কাশেমী ইমামতি করেন।

এ বছর সাংসদ ইকবালুর রহিম এর অধীনে মাঠটি নতুন করে সাজানো হয়েছে।

বাংলাদেশ আর পাকিস্তান চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনাল খেলবে – ওয়াসিম আকরাম

পাকিস্তানের লিজেন্ড পেস বোলার এবং কিং অফ সুইং “ওয়াসিম আকরাম” পি টি আই এর একটি সাক্ষাতকারে বলেছেন, তিনি বাংলাদেশ এবং পাকিস্তান এর ফাইনাল ম্যাচ দেখার আশায় টিভির সামনে অধীর আগ্রহে বসে আছেন। এই গতি তারকা আরও বলেছেন, বাংলাদেশ এ মুহুর্তের একটি দুর্দান্ত দল। তারা জানে কিভাবে প্রতিপক্ষকে তছনছ করে দিতে হয়, তারা জানে, কিভাবে জয় ছিনিয়ে আনতে হয়। এমনকি তিনি এটাও বলেছেন, বাংলাদেশ এর দলটা সামর্থ্য রয়েছে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয়ের।

তিনি প্রশংসা করেছেন মাশরাফি’র অধিনায়কত্বের। মুস্তাফিজ প্রসঙ্গ এলে তিনি জানিয়েছেন, ফিজের মাঝে তিনি নিজেকে খুজে পেয়েছেন।

চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে নিউজিল্যন্ড এর বিপক্ষে জয়ের পরে তারকাদের উচ্ছ্বাস

দুর্দান্ত ব্যাটিং করল বাংলাদেশ। দারুণ লড়াই করেছে সাকিব আর মাদমুদউল্লাহ।
কুমার সঙ্গকারা, ক্রিকেটার, শ্রীলঙ্কা

ওয়ান ডে ক্রিকেটে এ রকম ভাল পার্টনারশিপ আগে দেখেছি বলে মনে পড়ছে না।
মাইকেল ভন, ক্রিকেটার, ইংল্যান্ড

খুশিতে পাগল হয়ে যাবোরে!
আমব্রিন, উপস্থাপক

জিতেছি
চঞ্চল চৌধুরী, অভিনেতা

আমাকে দুইটা সেঞ্চুরি দাও। আমি একটা জয় উপহার দেই!
ঈশিকা খান, মডেল

This is called a TEAM!
আল মামনুন জামান, কমেডিয়ান

Number 1 Shakib Al Hasan
Vayra Mahmudullah
এস এম আমিনুল রুবেল, সিনেম্যাটোগ্রাফার

ধন্যবাদ বাংলাদেশ ক্রিকেট টিম, ধন্যবাদ সাকিব & মাহমদুল্লাহ
পিন্টো ঘোষ , গায়ক

It’s called Bangladesh ❤
Sakib
Mahamudullah rookzzzzzz
অন্তর রহমান, গায়ক

This is not a surprise, This is class.
যুবাইর বিন ইকবাল, ফটোগ্রাফার

বাঙালিদের ক্রিকেট প্রীতি প্রশংসনীয়। বাঙালি নারী পুরুষ উভয়েই এ খেলাটি পছন্দ করে। অন্য সকল বিষয় নিয়ে অহেতুক কাঁদা ছোড়াছুড়ি এবং তীব্র মতবিরোধ থাকলেও ক্রিকেট নিয়ে নেই। এটি বেশ আশা ব্যন্জক একটি ব্যাপার! তাই ভাবছি- যদি এ দেশের সবাই ক্রিকেট খেলতো তাহলে হয়তো আর ঝগড়া-বিবাদ থাকতো না !
শাওন চৌধুরী, গায়ক

নিউজিল্যান্ডের জনৈক ক্রিকেটারকে তার পিতার চিঠি

আই সি সি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ২০১৭ এর বাংলাদেশ বনাম নিউজিল্যান্ড এর খেলার পরে নিউজিল্যান্ড থেকে এক বাবা তার সন্তানকে পাঠিয়েছিল একটি চিটি। এ চিঠিটি পাঠকদের জন্য তুলে ধরেছেন ইশতিয়াক আহমেদ-

প্রিয় পুত্র,
কেমন আছো? খেলা দেখে যা বুঝলাম, ভালো নেই।
এতো কষ্ট করে একটা ডেইরি ফার্ম দিলাম। বললাম, এটার হাল ধরো। তুমি আমার কথা শুনলে না। তুমি শুনলে, এলাকার বড়ভাইদের কথা। হাল ধরলে ব্যাটের। মনে করেছিলে, অনেক কিছু করে ফেলবে। হলো তো? আমরা গরু পালি। রাখাল সম্প্রদায়। রাখালদের কখনও বাঘের কাছে যেতে নাই। ছোটবেলায় পড়িয়েছি। তুমি সেই ফাঁদে পা দিলে। এখন বাঘ খেয়ে দিলো তো?

লজ্জায় বাইরে যেতে পারছিনা। মুখ দেখাতে পারছিনা। কোনও ভিডিও কল রিসিভ করতে পারছিনা। তুমি খেলতে গেলে। গো হারা হারলে। অথচ বারান্দা থেকে দেখলাম, পাশের বাসার তোমার বয়সী জ্যাকসন দশ লিটার দুধ নিয়ে বাজারে গেলো বিক্রি করতে। আর কত বাঘের লেজ দিয়ে কান চুলকাবা বাবা?

দেশে আসো। কটনবাড কিনে রাখলাম।

তোমার পিতা
মিঃ এক্স