ছাত্রজীবনেই যে ৫ সফটওয়্যারের কাজ শেখা উচিত

মাইক্রসফট ওয়ার্ড
বর্তমানে ছাত্রজীবনেই লিখতে এসাইনমেন্ট, প্রোজেক্ট, থিসিস ইত্যাদি। আর এ লেখার জন্য দরকার সফটওয়্যার। এ জন্য মাইক্রসফট ওয়ার্ড একটি অত্যাবশ্যকীয় সফটওয়্যার। বিভিন্ন রকম ছবি, নকশা, গ্রাফ বসিয়ে কোনো গবেষণাপত্র চমৎকারভাবে উপস্থাপন করা যায় এই সফটওয়্যারের মাধ্যমে।

মাইক্রোসফট পাওয়ার পয়েন্ট
মাইক্রোসফট পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমে যে কোন ধরণের প্রেজেন্টেশন তৈরি করা যায়। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রায় সব বিষয়ের কোনো না কোনো কোর্সে প্রেজেন্টেশন বাধ্যতামূলক থাকে। মাইক্রোসফট পাওয়ার পয়েন্ট জানা থাকলে
চমৎকার প্রেজেন্টেশন দেয়া সম্ভব।

মাইক্রোসফট এক্সেল
বিজ্ঞান কিংবা বাণিজ্য যা-ই পড়ুন না কেন, তথ্য-উপাত্ত সঠিকভাবে সাজিয়ে উপস্থাপনের জন্য মাইক্রোসফট এক্সেল খুবই জরুরি। বিশেষ কওরে বাণিজ্যের ছাত্রদের জন্য এটি একটি অত্যাবশ্যকীয় সফটওয়্যার।

অ্যাডোব ফটোশপ
প্রেজেন্টেশন, থিসিস বা অন্য কোথাও ভালো ছবি উপস্থাপনের জন্য ছবি সম্পাদনার কাজ প্রয়োজন হতে পারে। প্রেজেন্টেশনে আপনি যা বোঝাতে চাইছেন, ঠিক আপনার মনের মতো ছবি হয়তো ইন্টারনেটে পাবেন না। অ্যাডোব ফটোশপের কাজ জানা থাকলে ছবিগুলো প্রয়োজনমত সাজিয়ে নেয়া যেতে পারা যাবে। এতে প্রেজেন্টেশ বা থিসিস আরও সুন্দর হবে।

এসপিএসএস স্ট্যাটিস্টিকস
বিশ্লেষণ, গবেষণা ব্যাখ্যা কিংবা তথ্য বিশ্লেষণের জন্য এসপিএসএস স্ট্যাটিস্টিকস সফটওয়্যার ব্যবহৃত হয়। এ সফটওয়্যারটির বহুমাত্রিক ব্যবহার শুধু বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণায় নয়, যেকোন ব্যবসা-বাণিজ্যে প্রয়োগ করা হয়।

top wedding photographerin bangladesh

Related posts

Leave a Comment