যৌনমিলনের সময়ে পুরুষের জন্য মনে রাখতে হবে কিছু জিনিস

যৌনমিলনের সময়ে পুরুষের জন্য মনে রাখতে হবে কিছু জিনিস

যৌনসঙ্গম (যৌনমিলন, সঙ্গম, মৈথুন, রতিক্রিয়া, রতিমিলন; যৌন সংসর্গ, যৌন সহবাস, সহবাস ইত্যাদি) হচ্ছে একটি জৈবিক প্রক্রিয়া যা দ্বারা মূলত যৌনআনন্দ বা প্রজনন বা উভয় ক্রিয়ার জন্য একজন পুরুষের উত্থিত শিশ্ন একজন নারীর যোনিপথে অনুপ্রবেশ করানো ও সঞ্চালনা করাকে বোঝায়।

অধিকাংশ পুরুষ যৌনমিলনের সময়ে এমন কিছু ভুল করে ফেলে, যাতে ভাটা পড়ে যৌনতার আনন্দে। সুখী যৌনজীবন পেতে এ ভুলগুলি এড়িয়ে চলাই শ্রেয়। সুখী দাম্পত্যের অন্যতম চাবিকাঠি সুখী যৌনজীবন। আর সুখী যৌনজীবনের জন্য অবশ্যই দরকার সঠিক যৌনশিক্ষা।

যৌনতা মানে শুধুই যৌনমিলন নয়। কথোপকথন, স্নেহ-চুম্বন সবই ঘনিষ্ঠতা বাড়াতে সাহায্য করে। বিশেষ করে নারীরা তাদের ঘাড়, কান, লতিকায় চুম্বন বেশ উপভোগ করে। এছাড়া এসকল স্থানে চুম্বন নারীকে সাধারণত খুব দ্রুত উত্তেজিত করে ফেলে। গবেষকরা বলছেন, কয়েক সেকেন্ডের আলিঙ্গনও অক্সিটোসিন হরমোনের ক্ষরণ বৃদ্ধি করে, এই হরমোনের প্রভাবেই বৃদ্ধি পাবে যৌন উত্তোজনা। যৌনমিলনের পূর্বে স্নেহ-স্পর্শগুলি বেশ উপভোগ করেন নারীরা। তাই নারীদের চাহিদার কথাও মাথায় রাখতে হবে। উত্তেজনার বশে তাড়াহুড়ো করে ফেলা যৌনমিলনের আনন্দে অনেকটাই নেতিবাচক প্রভাব ফেলে।

অধিকাংশ ক্ষেত্রেই যৌনতার একটি পূর্ববর্তী ধারণা মাথায় গেঁথে নেন পুরুষরা। মিলনের সময়ে এক বার যে কাজগুলি সঙ্গী আনন্দ দিয়েছিল, পরের বার সেই পন্থা কাজে না-ও আসতে পারে। যৌনতার সময়ে কথা বলুন সঙ্গীর অনুভূতি সম্পর্কে। জানতে চান তিনি আদতেও উপভোগ করছেন কি না পুরো বিষয়টি। সঙ্গী বেশি উত্তেজিতবোধ করলে আপনার যৌনসুখ আরও কয়েক গুণ বৃদ্ধি পাবে।

পুরুষরা অধিকাংশ ক্ষেত্রেই নারীর যৌনতাবোধ ও যৌন চাহিদার সন্তুষ্টি নিয়ে মাথা ঘামানোর প্রয়োজন বোধ করেন না। অথচ যৌনতার চরম ও প্রকৃত সুখ উপভোগ করার জন্য পুরুষ ও নারীর মেহন সমান গুরুত্বপূর্ণ। কাজেই যৌন জীবনকে সুখী করতে শুধু নিজের সন্তোষের কথা ভাবলেই চলবে না!

যৌনাঙ্গের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা ভীষণ জরুরি। আর এটি একটি নিয়মিত অভ্যাস। কেবল যৌন মিলনের আগে ও পরে যৌনাঙ্গ পরিষ্কার করলেই এই পরিচ্ছন্নতা প্রকাশ পায় না। শুধু যৌন মিলনই নয়, যৌন স্বাস্থ্য ভাল রাখতেও নিয়মিত যৌনাঙ্গ পরিষ্কার করা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। যৌনাঙ্গ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখলে বিভিন্ন রকম যৌন রোগ থেকেও নিরাপদ থাকা যায়। এছাড়া নাভির নিচের অবাঞ্ছিত কেশ নিয়মিত পরিষ্কার রাখতে হবে। অপরিষ্কার যৌনাঙ্গের কারণে সঙ্গী মিলনের আগ্রহ হারিয়ে ফেলতে পারেন। অপরিষ্কার যৌনাঙ্গ থেকে বেশ দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পরে যা বিরক্তি এনে দিবে।

top wedding photographerin bangladesh

Related posts

Leave a Comment