বচন

“মানুষের কথা বলা শিখতে লাগে দুই বছর।
কি বলা উচিত সেটা শিখতে লেগে যায় সারা জীবন।”
তাসনিম ফাতেহা

ঈদ শপিং

এক ভদ্র মহিলা কেনাকাটা ‌শেষ করে
ক্যাশ কাউন্টারের সামনে ‌পে‌মেন্ট দেয়ার জন্য ব্যাগ খুলতেই ক্যাশিয়ারের নজরে এল তার ব্যা‌গে এক‌টি টিভি রিমোট।
ক্যা‌শিয়ার: (কৌতুহলবশত, জানতে চাইলেন)
ম্যাডাম ব্যাগে টি‌ভি রিমোট কি সব সময় থাকে?
মহিলাঃ না, মাঝে সাজে। আজ আমার হাজব্যান্ড আই পি এল ফাইনাল দেখবে বলে আমার সা‌থে শপিং’এ এলোনা। তাই জব্দ করতে টি‌ভি রিমোটটা ব্যাগে ক‌রে নি‌য়ে এ‌সে‌ছি।
শিক্ষাঃ
(১) বউ এর তুচ্ছ ‌বিষ‌য়েও তাচ্ছিল্য কর‌লে বিপদ।
ক্যাশিয়ার: (হাসতে হাসতে) ভদ্র ম‌হিলার এ‌টিএম কার্ডটি ফেরত দিতেই-
মহিলা : এটা কি হল?
ক্যাশিয়ার : আপনার স্বামী ওনার সাপ্লি‌মেন্টা‌রি কার্ডটি সম্ভবত ব্লক করে দিয়েছেন।
শিক্ষাঃ
(২) স্বামীর শখও স্ত্রীর নিকট সম্মান‌যোগ্য।
মহিলা: ব্যাগ থেকে এবার স্বামীর এ‌টিএম কার্ডটি বের করে সোয়াইপ করলেন।
শিক্ষাঃ
(৩) বৌ-এর লম্বা হাতের সঠিক ধারণা থাকা দরকার।
ক্যা‌শিয়ার: ভদ্র ম‌হিলা‌কে বল‌লেন, সোয়াইপ মে‌শিন থে‌কে আপনার মোবাই‌লে একটা পিন নম্বর পাঠা‌নো হ‌য়ে‌ছে। সে‌টি বলুন?
শিক্ষাঃ
(৪) বেচারা স্বামীকে বাঁচাতে মেশিনও চেষ্টা করে।
মহিলা: (মুচকি হেসে) ব্যাগ থেকে স্বামীর ‌মোবাইল ফোনটা বের করলেন এবং পিন নম্বরটা ক্যা‌শিয়ার‌কে জানা‌লেন। (বি:দ্র: স্বামীর মোবাইল ফোন‌টি তি‌নি স‌ঙ্গে এনেছিল যাতে শপিংএর সময় স্বামী ফোনে বিরক্ত কর‌তে না পা‌রে।)
শিক্ষাঃ
(৫) স্মার্ট ও ভদ্র মহিলাদের সাথে টক্কর নিও না।
অবশেষে, সব কেনাকাটা সেরে তৃপ্ত ম‌নে ভদ্র‌মহিলা ঘরে ফিরলেন।
বাড়ি ফি‌রে মহিলা দেখলেন, গ্যারেজে স্বামীর গাড়ি নেই।
ঘ‌রের দরজায় স্টিকারে লেখা-
“বন্ধুর বাড়ী আই‌পিএল ফাইনাল খেলা দেখতে গেলাম। ফিরতে অনেক রাত হ‌তে পা‌রে। আর হ্যাঁ, কোন দরকার থাকলে মোবাই‌লে ফোন করো।”
স্টিকা‌রে লেখা প‌ড়ে-
হতাশ হ‌য়ে ভদ্রমহিলা ঘ‌রের দরজার সাম‌নে বসে পড়লেন। কারণ-
বাড়ীর চাবিটা স্বামীর কাছে! আর-
স্বামীর মোবা‌ইল ফোনটা ভদ্র ম‌হিলার কা‌ছে!
শেষ শিক্ষা:
স্বামীর ওপর বেশি প্যাঁচ কষলে ‌শেষ পর্যন্ত স্ত্রী‌কেও এর ফল ভোগ কর‌তে হয়।

১ রানে জয়লাভ করে দশম আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হল মুম্বাই

রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে ১ রানে জয় লাভ করে মুম্বাই। আর এতেই দশম আইপিএল এর শিরোপা দখল করল। জয়ের জন্য দরকার ছিল শেষ ওভারে ১১ রান। কিন্তু মিচেল জনশন এর দুর্দান্ত বোলিং এর কারণে তা হয় নি।

বিস্তারিত আসছে……

পোস্ট গ্রাজুয়েট ইন সাংবাদিকতা

বাংলাদেশ ছোট্ট একটি দেশ, কিন্তু এদেশে সংবাদপত্রের অভাব নেই, অভাব নেই টিভি চ্যানেল এর। আর প্রায় প্রতিদিনই কোন না কোন অনলাইন নিউজ পোর্টাল চালু হচ্ছে। কিন্তু দেশে যোগ্য সাংবাদিক কজন আছে? কজন আছেন, যিনি সাংবাদিকতায় পড়াশোনা করেছেন? আর এ কারণেই হয়ত –

: ভাই ঘটনা শুনছেন?
: হুম, বাংলাদেশ ৮ উইকেটে জিতছে
: আরে না ভাই, সেটা না…….
: তো কি? ২৮ জন সমকামী ধরা পড়ছে….
: ধুর, এসব না…..
: তো?
: কোন এক ডাক্তার আব্দুল্লাহ ভুল চিকিৎসা দিয়ে রোগী মেরে ফেলছে
: কোন আব্দুল্লাহ?
: বিএসএমইউ নাকি কোথাকার কি জানি….
: আচ্ছা যাই হোক, ভুল চিকিৎসা তুই কেমনে বুঝলি?
: কেন ভাই! অমুক পেপারে দেখছি…..
: ও, তাই…….!
: যাক ভাই। এসব বাদ দেন। আমার আম্মু কয়েকদিন ধরে অসুস্থ। কোন ডাক্তার দেখালে ভাল হবে?
: অমুক পত্রিকার অফিসে ফোন দেয়…..
: কেন ভাই? ওখানে ফোন দিয়ে কি হবে?
: ফোন দিয়ে জিজ্ঞেস কর, যে রিপোর্টার ‘ভুল চিকিৎসা’ বলে নিউজ করেছে সে কোথায় চেম্বার করে। একটা সিরিয়াল দিতে বল…..
: ভাই মজা নিচ্ছেন নাকি! ও তো সাংবাদিক। ও কেমনে চিকিৎসা দিবে?
: কেন? কিছুক্ষণ আগে তুই না বললি, ও আব্দুল্লাহ স্যারের চিকিৎসার ভুল ধরেছে। তাহলে সে নিশ্চয় মেডিকেল সাইন্স ডাক্তারদের চেয়ে ভাল জানে। নাহয়, দেশের সব ডাক্তার বলতেছে চিকিৎসা ভুল ছিল না, সেখানে সে কেমনে বলল চিকিৎসা ভুল? তোর মাকে ওর কাছে নিয়ে যা, ভাল চিকিৎসা পাবি!
: না ভাই……আসলে

লি গোমেজ এর স্বপ্নের ভুবন

Model
লি গোমেজ
ছবিঃ আরণ্য

ছোটবেলা থেকেই গানকে সঙ্গে নিয়ে তার বড় হওয়া। কখনওবা বন্ধুদের আড্ডায় কখনও বা চার্চে। সেইন্ট লরেন্স চার্চে ভোকালিস্ট হিসাবে গান গাইছে অনেক বছর ধরেই। আর তার গানের সুরে মুগ্ধ হত বন্ধু-বান্ধব কিংবা দর্শক স্রোতারা। গাইতেল ক্লাসিক্যাল, ফোক, রক কিংবা জ্যাজ গান।

মূলত তিনি গান এর বিশেষ শিক্ষা লাভ করছেন ছায়ানট সঙ্গীত বিদ্যালয় থেকে। বাবা-মা’র ছোট কন্যা হিসাবে আদরে বেরে ওঠা লি জানালেন, গান নিয়ে তার স্বপ্নের কথা। এগিয়ে যেতে চান গান নিয়ে তিনি।

গান এর পাশাপাশি এ অনিন্দ্য সুন্দরী ললনা মডেলিংও করছেন। এখানেও পেয়েছেন তিনি সাফল্যের স্পর্শ। এই লস্যাময়ী রমনী নিয়মিত কাজ করেছেন বেশ কয়েকটি সংবাদপত্র এবং ট্যাবলয়েড পত্রিকায়।

নিজের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা জানাতে গিয়ে তিনি জানান, বিল গেটস কিংবা রতন টাটাকে আদর্শ মেনে নিয়ে ব্যবসা করতে চান। স্বপ্নকে বূকে ধারন করেন তিনি। আর সেই স্বপ্নকে ছোঁয়ার জন্যই প্রতিটি মুহুর্তে কাজ করেন এই নারী।

সেরা স্টেজ পারফর্মার হিসাবে বাবিসাস পুরস্কার অর্জন করলেন আনিশা তালুকদার

Singer
আনিশা তালুকদার

বাংলাদেশ বিনোদন সাংবাদিক সমিতি বিভিন্ন কাজের স্বীকৃতি হিসাবে বাবিসাস পুরষ্কার প্রদান করে থাকেন। এর মাঝে অন্যতম হচ্ছে সেরা স্টেজ পারফর্মার। আর এ বছর এ অনন্য মর্যাদার পুরষ্কার অর্জন করেছেন অনিন্দ্য সুন্দরী খ্যাতিমান সঙ্গীত শিল্পি আনিশা তালুকদার। তিনি এ বছর শতাধিক কনসার্ট করেছেন। মাতিয়েছেন হাজার হাজার দর্শককে। তার কনসার্টে মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে থাকতো দর্শকরা।

এ পুরষ্কার অর্জন করে উচ্ছসিত আনিশা তার ভক্তদের নিকট কৃতজ্ঞ। কেননা তারাই তাকে এ মর্যাদার আসনে বসিয়েছে।

বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পি অন্তর রহমান বলেছেন, আনিশা একজন অসাধারণ শিল্পি এবং এ পুরষ্কার তার হাতেই মানায়। তিনি তার সুন্দর ভবিষ্যৎ কামনা করেন। বাংলাদেশ এর অন্যতম সিনেম্যাটোগ্রাফার পান্থ রহমান বলেছেন, বাংলাদেশ বিনোদন সাংবাদিক সমিতি একজন যোগ্য শিল্পির হাতেই সেরা স্টেজ পারফর্মার এর পুরষ্কার প্রদান করেছে। এছাড়াও বিনোদন জগতের বিভিন্নজন সহ তার অগিণিত ভক্তরাও জানিয়েছেন তাকে শুভেচ্ছা।

এক যুগেরও অধিক সময় ধরে তিনি স্টেজে পারফর্ম করে আসছেন। সংখ্যার হিসাবে তা হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এবং প্রায় ১০ টি শো করেছেন দেশের বাইরে।

Bangladeshi Wedding Photographer

ভারতে গো মাংস খাওয়ার কারণে মুসলিম মহিলাকে গণধর্ষণ করল হিন্দু সম্প্রদায়

এক নারীকে গণধর্ষণ করল হিন্দু সম্প্রদায় এর লোকজন। ভারত এর মেওয়াত এলাকায় এই লোমহর্ষক ঘটনাটি গটে। এর কারণ ঐ নারী গরু মাংস খেয়েছে। শুধু গণধর্ষণ করেই তারা ক্ষান্ত হয়নি। তার ১৪ বছরের ভাইকেও আহত করেছে। এ সময়ে তাদের বাচাতে এগিয়ে আসেন তার বৃদ্ধ চাচা। এতে ঐ নারীর চাচাকে হত্যা করে তারা। প্রথমে পুলিশ কোন মামলা নিতে চায় নি। পরে অন্যান্য মুসলিমদের চাপের মুখে যৌন হয়রানির মামলা দাখিল করতে চায়, কিন্তু শেষ পর্যন্ত ক্রমাগত চাপের মুখে হত্যা মামলা নেয় পুলিশ। এ ঘটনায় পুলিশ চারজনকে গ্রেফতার করেছে। এ বর্বর সংবাদটি প্রথমে প্রকাশ করে ব্রিটিশ পত্রিকা ইনডেপেনডেন্ট

India Map

এর আগেও ভারতে গো মাংস খাওয়ার কারণে অনেক মহিলাকে গণধর্ষণ করা হয়েছে। কিন্তু ভারতীয় প্রশাসন এ ব্যাপারে বরাবরই নীরব থেকে এসেছে। ভারতে গরুকে হিন্দু ধর্মের অনুসারীরা পুজা ও ভক্তি করেন। কিন্তু ইসলাম ধর্মমতে একজন মানুষ গোমাংস খেতেই পারে। ধর্মনিরপেক্ষ রাস্ট্র হিসাবে ভারতে সকল ধর্মের লোকজন এর সমান অধিকার রয়েছে নিজ নিজ ধর্ম পালন করার।

২০১৬ সালে পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি গো মাংস রপ্তানি করেছে ভারত। ভারত এর পরেই রয়েছে ব্রাজিল ও অস্ট্রেলিয়া। যে দেশে আইন করে গরু হত্যা নিষিদ্ধ করা হয়েছে, সেদেশ সবচেয়ে বেশি গোমাংস রপ্তানি করে, এমন বিচিত্র পরিসংখ্যান হয়ত খুব দুর্লভ।

মদ্যপ শাকিব খান ধাওয়া খেলেন এফডিসিতে

গতকাল ছিল এফডিসি এর সাধারণ শিল্পি সমিতির নির্বাচন। ভোট গণনা চলছিল মধ্যরাতে। হঠাত এসময়ে নায়ক শাকিব খান পেছনের ফটক দিয়ে প্রবেশ করে। পরে তাকে বের করে দেয়া হয়। এ সময়ে তিনি মদ্যপ ছিলেন। বের হতে না চাইলে, তাকে ধাওয়া করে অন্যান্য প্রার্থির সমর্থকরা। এবং তার দিকে জুতা ও ঢিল ছুরে মারা হয়। পরে তিনি পালিয়ে যান।

ভোট গণনার সময়ে অন্য কারও এ কক্ষে প্রবেশের অনুমতি নেই, তবে প্রার্থির প্রতিনিধিরা সেখানে থাকতে পারেন। কিন্তু শাকিব শুধুই একজন সাধারণ ভোটার ছিলেন। তবে কেন তিনি সেখানে প্রবেশ করেছেন, তা জানা যায় নি।

এর আগে তিনি শিল্পী সমিতির সভাপতি ছিলেন।

কয়েকদিন আগে তিনি নির্মাতাদের বিরুদ্ধে আজেবাজে কথা বলেছিলেন। এরপরে নির্মাতারা তাকে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করেন। এবং তাকে আর কোন ছবিতে নেবেন না, বলে জানিয়ে দেন। নির্মাতারা বলেছেন, তিনি অহংকারী। তিনি তার জীবনকেও রুপালী পর্দা মনে করেন। পরে নায়ক আলমগীর আসেন এ ব্যাপারটি সমাধান করতে এবং তাকে ক্ষমা চাইতে বলেন। পরে শাকিব খান ক্ষমা চান।

কয়েকদিন আগে নায়িকা অপু বিশ্বাস হঠাত করেই নিউজ ২৪ টেলিভিশন চ্যানেলে আসেন, সঙ্গে ছিল তার পুত্র সন্তান আব্রাহাম। একটি সাক্ষাৎকার প্রদান করেন এবং জানিয়েছেন আট বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। গত বছর তার একটি পুত্র সন্তান হয়। শুধুমাত্র পরিবারের ঘনিষ্ঠ কতিপয় ব্যক্তি ছাড়া কিন্তু এ ব্যাপারটি কেও জানতো না। এ সময়ে অপু বিশ্বাস হিন্দু ধর্ম থেকে ধর্মান্তরিত হন।

Police

ঢাকায় চলাফেরা করতে হলে এসব বিষয়ে সতর্ক হন

১. ফার্মগেটে হঠাৎ দেখতে পেলেন, কতগুলো মানুষ একজন মানুষ কে মেরে রক্তাত্ত করে চলেছে আর সে আপনাকে বলছে ভাই, সাহায্য করেন। আপনি দয়া দেখাতে গিয়ে রক্ষা করতে এগিয়ে গেলেই বিপদ পরতে পারেন। ওরা আপনাকে মেরে সব কিছু নিয়ে যেতে পারে, কারণ তারা সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্র।

২. ওভার ব্রিজ এর উপর মহিলা কাঁদছে যে, সে যার সাথে দেখা করবে তার মোবাইলে কল দিতে হবে কিন্তু তার কাছে টাকা নেই। বলবে আপনার মোবাইল দিয়ে সেই লোকের নাম্বারে মিসকল দিলেও সে ব্যাক করবে। আপনি কল দিলেন তো ফাঁদে পড়লেন। ওরা নিরীহ মানুষ দেখে তাদের নম্বর সংগ্রহ করে ও পরবর্তীতে সেই নাম্বারে কল করে লোভনীয় প্রস্তাব দেয়, রাজী হলে আপনাকে তাদের আস্তানাতে নিয়ে ব্লাক মেইল করবে।

৩. শাহবাগ, মহাখালী, যাত্রাবাড়ী জ্যামে আটকে আছেন,নানা ধরণের লিফলেট যেমনঃ দুর্বলতা,রোগে, নানালোভে আপনাকে ফাঁদে ফেলার ব্যবস্থা। এমন বলবে যে রুম ডেট এর ব্যবস্থা আছে। সাবধান।

৪. রাস্তায় সুন্দর চোখ এর বোরকা-আলি আপনার সাথে কথা বলতে চায়, প্রেমের প্রস্তাব নয়, কিন্তু ইশারা, যে আপনি ভাববেন একটু চেষ্টা করলে কাছে পাবেন, যদি তাই ভাবেন তবে ধরা পড়ার সম্ভাবনা শতভাগ। আপনাকে তাদের আস্তানায় নিবে, তারপর আর কিছু আপনার করা লাগবে না। সব হারাবেন। মেয়ে দিয়ে ব্লাক মেইল করবে। সাবধান।

৫. গাবতলি, সায়েদাবাদ, কিংবা সদরঘাট , মাওয়া, আরিচা, দৌলতদিয়া ফেরি-ঘাটে বসে আছেন, দেখলেন যে বাইরে তাস,লুডু ইত্যাদি খেলছে, কাছে গেলেন তো ফেঁসে গেলেন।সাবধান।

৬. যাত্রাপথে অপরিচিত লোক এর সাথে মত বিনিময় করবেন খুব কম। পরিচিত লোক ছাড়া মেলামেশা না করাই ভাল। অপরিচিত জায়গায় সাবধানে চলবেন। প্রয়োজনে পুলিশের সহযোগিতা নিবেন।

৭. রেলগাড়ির ছাঁদে চলাচল করা থেকে বিরত থাকবেন, কারণ এক দল ছেলে পাওয়া যায়, যারা রেলের ছাদের উপর থেকে ছিনতাই করে ছাদ থেকে ফেলে দেয়।

৮. লঞ্চ, বাস বা ট্রেন এ কোনো বগি তে কম যাত্রী থাকলে উঠবেন না। বিশেষ করে আপনি যদি মেয়েযাত্রী হন বা সাথে মেয়ে বা মহিলা যাত্রী থাকে।

৯. যারা দ্রুত যাতায়াত এর জন্য স্পীড বোট এ যাতায়াত করবেন যেমন মাওয়া ঘাট এ , তারা টাকা বা মুল্যবান কিছু সাথে নিবেন না আর রাতে পার হবেন নাহ । কারণ দেখা গিয়েছে যে, এক দল আছে যারা বোট ছাড়ার পর নির্জন স্থানেবোট ভিড়িয়ে ছিনতাই করে আপনাকে নামিয়ে দিতে পারে।

১০. হেঁটে যেতে হলে বিভিন্ন বাস ডিপোর কাছ দিয়া , বা বাসের মাঝখান দিয়ে যাওয়া অনুচিত কারণ নেশাখোর ওঁতপেতে থাকে ছিনতাই এর জন্য।

১১. আপনি ব্যাংক থেকে টাকা তুলছেন , আপনাকে ফলো করবে একদল ছিনতাই কারি ? তারা সংঘ বদ্ধ ৮/১০ জন, বাসে উঠে বলবে আপনার কাছে থাকা পরিমান তাদের টাকা হারাইসে। ওদের লোক খুজবে , আপনার কাছে পাবে , আপনাকে ছিনতাইকারী বলে পেটাবে , আর টাকা নিয়ে যাবে !!

[ বিপদ অাপনার কাছে যেকোনো মূর্হুতে চলে অাসতে পারে। তাই সবসময় চোখ-কান খোলা রেখে অগ্রসর হবেন]